Fri. Feb 26th, 2021
Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মুসলিমবিদ্বেষী নাগরিকত্ব আইন পাসের প্রতিবাদে যখন উত্তাল ভারত, তখন ভারতীয় গণমাধ্যমে প্রকাশ হলো দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির একটি বক্তৃতা।

যেখানে দেখা গেছে, তার বক্তব্যের সমর্থনে দর্শকশ্রোতাদের হাততালির পরিমাণ কম পড়াতে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন মোদি নিজেই।

তিনি বলে উঠলেন– হাততালিতে দম নেই কেন? আপনারা মনে হয় আমার কথা ঠিক করে শুনছেন না।

শুক্রবার ভারতের দিল্লির বিজ্ঞান ভবনে অন্যতম বড় বণিকসভা অ্যাসোচেমের বার্ষিক সাধারণসভায় এমন ঘটনাই ঘটল।

ওই সভায় ভারতের বর্তমান অর্থনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে বক্তব্য দিচ্ছিলেন মোদি। মোদির সেই বক্তব্যের দিকে তাকিয়েছিলেন ভারতীয় শিল্পপতি ও উদ্যোক্তারা।

সেই সভায় ভারতের অর্থনীতির বেহাল দশাকে একরকম স্বীকার করেন মোদি। তিনি বলেন, অর্থনীতিতে এমন ওঠানামা থাকেই। ভারতের বতর্মান অর্থনীতি কিছুটা মন্দা হলেও সঠিক দিশায় এগোচ্ছি আমরা। পাঁচ-ছয় বছর আগে ভারতে অর্থনীতি যে বিপর্যয়ের মুখে পড়েছিল, সেই পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠেছি আমরা। বর্তমানে আমাদের অর্থনীতি একটা স্থিতিশীল অবস্থায় পৌঁছেছে। ভারতের অর্থনীতি দ্রুত ৫ ট্রিলিয়নে পরিণত হতে যাচ্ছে।

দেশের অর্থনীতি নিয়ে এমন সব বক্তব্য দিয়ে মোদি ভেবেছিলেন উপস্থিত ব্যবসায়ীদের মধ্যে হল ফাটিয়ে হাততালির ধুম পড়বে। কিন্তু মোদির এসব কথায় হয়তো মন গলেনি তাদের। দু-একজন ছাড়া বাকি সবাই চুপচাপই ছিলেন।

এতে অসন্তুষ্ট হন মোদি। তিনি হঠাৎ বক্তৃতা থামিয়ে বিরক্তির সুরে শ্রোতাদের উদ্দেশে বলেন, কী ব্যাপার– হাততালির শব্দ এত কম কেন? আমি তো আর একটু হাততালি আশা করছিলাম। আপনারা মনে হয়, অতীতের পরিসংখ্যান এখনও মনে করে রেখে দিয়েছেন। আর না হয় ঠিক মন দিয়ে শুনছেন না আমার কথা। শুনলে আরও বেশি হাততালি পড়ত।

নরেন্দ্র মোদির সে কথায় উপস্থিত ব্যবসায়ীদের একাংশ করতালির আওয়াজে গর্জে ওঠে। জোরেশোরেই হাততালি দিতে থাকেন তারা।

তবে বিশ্লেষকরা বলছেন, শুরুতে নরেন্দ্র মোদির যে জনপ্রিয়তা ছিল এখন তাতে অনেকটাই ভাটা পড়েছে। যে কারণে জোর করে হাততালি চাইতে হচ্ছে তাকে। ভারতের বর্তমান নিম্নগামী অর্থনীতি পরিস্থিতি নিয়ে দেশটির বণিকসমাজ যে বেশ অসন্তুষ্ট, তা এই অনুষ্ঠানে প্রকাশ পেল।

তারা আরও বলছেন, নরেন্দ্র মোদির মতো দোর্দণ্ডপ্রতাপ নেতাকে অর্থনীতি সংক্রান্ত বক্তৃতায় হাততালি নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করতে হচ্ছে। সেটিই উদ্বেগের বিষয়ই বটে!

Leave a Reply