Thu. Mar 4th, 2021
Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : রাশিয়ায় প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে চীন ফেরত এক নারী হাসপাতাল থেকে পালিয়ে গেছেন।

আলা লিনা (৩২) নামের ওই এখন সেন্ট পিটার্সবার্গে নিজের ফ্লাটে অবস্থান করছেন।

তবে ওই নারীকে আবার হাসপাতালে ফেরানোর চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

খবরে বলা হয়, ওই নারীকে হাসপাতালে ফেরাতে পুলিশ নজরদারিতে থাকলেও কক্ষের দরজা খুলছেন না তিনি।

গত মাসে চীন থেকে ফেরেন লিনা। তিনি জানিয়েছেন- ৬ ফেব্রুয়ারি পরীক্ষায় তার শরীরে করোনাভাইরাসের কোনো অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি। এরপরও তাকে হাসপাতালে রাখতে বলা হয়।

হাসপাতালের দরজার ইলেকট্রনিক লক অক্ষম করে দিয়ে পালিয়ে যান ওই নারী।

একটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পদার্থবিজ্ঞানে স্নাতক করা লিনা ইনস্টাগ্রামে জানান, গলাব্যথা নিয়ে ৩০ জানুয়ারি চীন থেকে রাশিয়ায় ফেরেন তিনি। ৬ ফেব্রুয়ারি অ্যাম্বুলেন্স ডেকে একটি হাসপাতালে যান।

পরীক্ষায় তার শরীরে করোনার কোনো অস্তিত্ব না পাওয়ার পরও দুই সপ্তাহ তাকে হাসপাতালের ‘কোয়ারেন্টাইন’ জোনে থাকতে বলা হয়।

তিনি বলেন, তিনটি পরীক্ষাতেই দেখা গেছে আমি সম্পূর্ণ সুস্থ আছি। এরপরও আমাকে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে কেন?

লিনা জানান, এর পরদিন ইলেকট্রনিক লককে অক্ষম করে দিয়ে হাসপাতাল ছেড়ে পালান তিনি। কীভাবে হাসপাতাল ছেড়ে পালাবেন; কোনোভবন দিয়ে, তারও একটি ম্যাপ আঁকেন তিনি।

এদিকে হাসপাতাল থেকে পালানোর এক সপ্তাহের মধ্যে কোনো ব্যবস্থা না নিলেও এখন আদালত থেকে তার বিরুদ্ধে ১৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত হাসপাতালে থাকতে একটি আদেশ জারি করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

প্রসঙ্গত বর্তমানে ৬৬ হাজার ৪৯২ রোগীকে করোনাভাইরাস আক্রান্ত বলে শনাক্ত করা হয়েছে। আর এতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন এক হাজার ৫২৩ জন।

এছাড়া করোনাভাইরাসে বিশাল একটা সংখ্যক চিকিৎসাকর্মী আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের সম্পর্কে চীনের কাছে তথ্য চেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ সংস্থা। এখন পর্যন্ত এক হাজার ৭৬০ স্বাস্থ্যকর্মী প্রাণঘাতী ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে চীন।

Leave a Reply