Thu. Feb 25th, 2021
Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কুকুরের মাংস বিক্রেতা সেলিম মিয়া একজন মাদকসেবী। মাদক সেবনের টাকা জোগাড় করতে তিনি চুরি-ডাকাতি করে বেড়ান। গত মঙ্গলবার ঘোড়াঘাট আজাদমোড়ে কয়েকজন ব্যক্তি তাকে ব্যাগের ভিতরে কুকুর নিয়ে ভুট্টার জমিতে যেতে দেখেন।

পরে সন্দেহ হলে স্থানীয়রা ভুট্টার জমিতে গিয়ে দেখে সেখানে কুকুরের চামড়া পরে আছে। এ দিকে আটককৃত সেলিম মিয়া ৮শ’ গ্রাম মাংস নিয়ে গিয়ে স্থানীয় এক মাছ বিক্রেতার কাছে সস্তায় বিক্রি করে।

ভুক্তভোগী মাংস ক্রেতা উজ্জ্বল জানান, আটককৃত সেলিম মিয়ার বাবা ও ভাই কসাইয়ের কাজ করে। সে সুবাদে গত মঙ্গলবার সেলিম ৮শ’ গ্রাম মাংস নিয়ে তার কাছে গিয়ে বলে, তিনি একটি বাড়িতে ছাগল জবাই ও চামড়া ছড়ানোর কাজ করেছে।

সেখানে পারিশ্রমিক হিসেবে তাকে ছাগলের মাংস দেয়া হয়েছে এবং সে সস্তায় মাংস বিক্রির প্রস্তাব দেয়। পরে দরদামের এক পর্যায়ে ১৮০ টাকাতে তিনি ৮শ’ গ্রাম মাংস কিনে নেন।

তিনি আরও জানান, বাড়িতে নিয়ে রান্না করার পর মাংসের তরকারিতে থাকা পায়ের হাড়ে কুকুরের পায়ের মত নখ দেখে তার সন্দেহ হয়। পরে তিনি জানতে পারেন ওই দিন মাংস বিক্রেতা সেলিম ভুট্টার জমিতে কুকুর জবাই করেছে।

Leave a Reply