Mon. Mar 1st, 2021
Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নীলফামারীতে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন থেকে ২৮ ইটভাটি শ্রমিকের হদিস মিলছে না। এ ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে প্রায় ১০টি গ্রামে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল মঙ্গলবার রাতে জেলা সদর উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের সোনারায় সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে। আচ বুধবার সকাল হতে পালিয়ে যাওয়া ২৮জনকে খুঁজতে পুলিশ, ও এলাকার জনপ্রতিনিধিরা মাঠে নেমেছে।

সূত্র জানায়, গতকাল মঙ্গলবার সকালে সৈয়দপুর থানা পুলিশ সৈয়দপুর-পার্বতীপুর সড়কের চৌমুহনী বাজারের অস্থায়ী পুলিশ চেকপোষ্ট ৪৪জন ভাটা শ্রমিককে আটক করে। তারা ট্রাকে ত্রিপল দিয়ে বিশেষ কায়দায় গাজীপুর থেকে পালিয়ে আসতেছিল। পরে পুলিশ প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগ বিকেল ৪টার দিকে আটক ভাটিশ্রমিকদের তাদের নিজ গ্রাম নীলফামারী সদরের সোনারায় ইউনিয়নের সোনারায় ও চকদুবলিয়া গ্রামের দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ১৪দিন কোয়ারেন্টাইনে রাখেন। সেখান থেকে তারা পালিয়ে যায়।

স্থানীয়রা জানায়, কোয়ারেন্টাইন না মেনে ওইসব শ্রমিককে আজ বুধবার সকালে তাদের নিজ নিজ বাড়ির সামনে ঘোরাফেরা করতে দেখা যায়। তাৎক্ষনিক বিষয়টি ইউপি চেয়ারম্যান ও থানা পুলিশ অবহিত করলে তারা বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত আজ বুধবার ১২টায় পালিয়ে যাওয়া শ্রমিকরা প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে ফিরে নাই। যদি ফিরিয়ে আসে ওইসব শ্রমিক, তাহলে পরিবারের সাথে রাত্রী যাপনের কারনে তাদের পরিবার লকডাউন করার দাবি এখন গ্রামবাসীর।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে সোনারায় ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল জানান, কোয়ারেন্টাইনে থাকা শ্রমিকদের দেখভালের জন্য সংশি¬ষ্ট ওয়াডের সদস্য ও গ্রাম পুলিশ নিয়োজিত ছিল। কোয়ারেন্টাইনে থাকা শ্রমিকদের রাতের খাবারের ব্যবস্থা করার সময় ওই এলাকা থেকে জনৈক ব্যক্তি ফোন করে তাদের পালিয়ে যাওয়ার ঘটনাটি জানান।

নীলফামারী সদর থানার ওসি মমিনুল ইসলাম বলেন, পুলিশ, ইউপি চেয়ারম্যান, ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ওই সকল শ্রমিকদের খুঁজছে। তাদের বুঝিয়ে কোয়ারেন্টাইনে ফিরে আসার চেস্টা চলছে।

সূত্র:দৈনিক জনকন্ঠ

Leave a Reply