Mon. Mar 8th, 2021
Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) নমুনা পরীক্ষার জন্য সরকারিভাবে ফি নির্ধারণ করে দেয়া হচ্ছে। যা এখন বিনামূল্যে করা হচ্ছে। স্বাস্থ্য সংশ্লিষ্ট সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে। তবে ফি কত নির্ধারিত হচ্ছে- তা সুনির্দিষ্টভাবে বলতে পারেনি সূত্রটি।

দেশে করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর থেকেই সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগ বিনামূল্যে নমুনা পরীক্ষা করে আসছে। যদিও সেই টেস্টের পরিমাণ প্রথম দিকে খুব সীমিত ছিল। তবে এখন টেস্টের সংখ্যা বেড়েছে। বর্তমানে ১৫ থেকে ২০ হাজারের মতো প্রতিদিন টেস্ট হচ্ছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সূত্রের ভাষ্য, এখন টেস্ট দিন দিন বাড়ছে। ফলে প্রতিদিন অনেক টাকা খরচ হয়। সেজন্য সামান্য ফি নির্ধারণ করার একটা চিন্তা-ভাবনা চলছে। ইতিমধ্যেই এ সংক্রান্ত খসড়া তৈরি হয়েছে। হিসাব-নিকাশ শেষে খুব শীঘ্রই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে এবং ঘোষণা দেয়া হবে। তবে ফি সীমিতই নির্ধারণ করা হবে বলে জানিয়েছে সূত্রটি।

মহামারি করোনাভাইরাস শনাক্তে চলতি বছরের গত ২১ জানুয়ারি থেকে সরকারিভাবে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে আরটি-পিসিআর ল্যাবরেটরিতে নমুনা পরীক্ষা শুরু হয়। শুরুর দিকে শুধু একটি মাত্র প্রতিষ্ঠান স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) ল্যাবরেটরিতে নমুনা পরীক্ষা করা হতো। সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় পর্যায়ক্রমে সরকারি বিভিন্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান এবং বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে নমুনা পরীক্ষা শুরু হয়। বর্তমানে ৬৬টি সরকারি ও বেসরকারি ল্যাবরেটরিতে প্রতিদিন নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে।

গতকাল ২৬ জুন পর্যন্ত সারাদেশের ল্যাবরেটরিতে ছয় লাখ ৯৬ হাজার ৯৪১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। মোট নমুনা পরীক্ষার সিংহভাগই হয়েছে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে সরকারি প্রতিষ্ঠানে। বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে নমুনা পরীক্ষার জন্য তিন হাজার ৫০০ টাকা ফি নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্য অধিদফতরের একাধিক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা বলেন, সরকারিভাবে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে পরীক্ষার ফলে বিপুল অংকের অর্থ ব্যয় হচ্ছে। এছাড়া প্রয়োজনে-অপ্রয়োজনে নমুনা পরীক্ষার অপব্যবহার হচ্ছে।

Leave a Reply