Sun. Feb 28th, 2021
Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

রাজধানীর কলাবাগান থা’না এলাকা থেকে উ’দ্ধার করা সেই পরিচয়হীন নারীর হ’ত্যা র’হস্য উন্মোচিত হয়েছে এবং সন্ধিগ্ধ হ’ত্যাকারীকে আ’ট’কও করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পু’লিশ।গ্রে’ফতারকৃতের নাম আনসার আলী। তিনি স্থানীয় একটি বাড়ির নৈশপ্রহরী হিসেবে চাকরি করতেন।

নবগঠিত রমনা গোয়েন্দা বিভাগের একটি দল শনিবার সকাল ০৮:৩০ টায় রাজধানীর গ্রিনরোড থেকে আনসার আলীকে গ্রে’ফতার করেছেন।রমনা ডিবির অ’তিরিক্ত উপ-পু’লিশ কমিশনার মিশু বিশ্বা’স পিপিএম ডিএমপি নিউজকে জানান, গত শুক্রবার সকাল ৪:৩০ টায় গ্রিনরোড এলাকার পাকা রাস্তার পাশে এক অ’জ্ঞাতনামা নারীর (৪০) ম’রদেহ দেখে এলাকাবাসী পু’লিশকে খবর দেন।

ম’রদেহের নাক-মুখ দিয়ে কালচে র’ক্ত গড়িয়ে পড়ছিল, শরীরের কামিজ ছেঁড়া, গলায় ওড়না ও পাটের সুতা দিয়ে গিট দেওয়া ছিল।তিনি বলেন, অ’জ্ঞাত লা’শের র’হস্য উদঘাটন করতে থা’না পু’লিশের পাশাপাশি ছায়া ত’দন্ত শুরু করেন গোয়েন্দা বিভাগ। আধুনিক কলাকৌশল প্রয়োগের মাধ্যমে ঘটনার সাথে জ’ড়িত স’ন্দেহে ঘটনাস্থলের পাশের একটি বাড়ির নৈশ প্রহরী আনসার আলীকে গ্রে’ফতার করা হয়।

গোয়েন্দা কর্মক’র্তা মিশু বিশ্বা’স পিপিএম আরো জানান, গ্রে’ফতারকৃত আনসার আলীকে জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসে হ’ত্যাকা’ণ্ডের লোমহর্ষক বর্ণনা। গত বৃহস্পতিবার রাতে সিকিউরিটি গার্ডের ডিউটিরত থাকা অবস্থায় মে’য়েটি গেটের কাছে আসলে তার সাথে অ’নৈতিক স’ম্পর্ক স্থাপনের প্রস্তাব দেন তিনি এবং এক পর্যায়ে আনসার আলী নারীকে বাথরুমে নিয়ে যান।

কিন্তু “অর্থনৈতিক বিষয়” নিয়ে দুজনের কথা কাঁ’টাকাটি হলে একপর্যায়ে আনসার আলী ঐ নারীর গলা চেপে ধরেন এবং বাথরুমের দেয়ালের সাথে ধাক্কা মা’রেন। আ’ঘাতে মুখ ও গাল থেকে র’ক্ত বের হয়ে বাথরুমেই মৃ’ত্যুবরণ করেন ওই নারী।

আনসার আলী রাতেই ম’রদেহের গলায় ওড়না ও পাটের রশি পেঁচিয়ে টেনে নিয়ে রাস্তার পাশে ফেলে রাখেন।পু’লিশ জানান, গ্রে’ফতারকৃত আনসার আলী স্বেচ্ছায় নিজের দোষ স্বীকার করে বিজ্ঞ আ’দালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানব’ন্দি প্রদান করেছেন।

সূত্র: ডিএমপিনিউজ

Leave a Reply