Sun. Apr 11th, 2021
Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মোঃ আনোয়ার হোসেন-
স্টার্ফ রিপোটার: মাত্র কয়দিন বাকী ধান কাটবে কৃষক ঘরে তুলবে সোনালী ফসল এই স্বপ্ন বুক বেধেছে কৃষক। কি তাদর এই স্বপ্ন একবারই পন্ড করত বসেছে ধানের পাতা ব্লাস্ট (বি এল বি) ও কারেট পোকা (বাদামী গাছ ফড়িং)। সরজমিন রুহিয়া থানাধীন কয়কটি ইউনিয়ন ঘুর দেখা যায় এবার আমন ধান ব্যাপকহারে ধানের পাতা ব্লাস্ট ও কারেট পোকা আক্রমণ হয়েছে। যার কারণে পাতার উপরের অংশর দিক থেকে প্রথমে কালো দাগ এবং পরে ধীর ধীর শুকিয়ে আসছে। আবার কারেট পোকার জন্য লালচে হয়ে যাচ্ছে ধানের গাছ। যার ফলে কমছে ধানের ফলন। কানি কশালগাঁও গ্রামের বুলবুল ও মনজু ইসলাম জানান, এবার আবহাওয়া ভালো থাকায় ধানর ফলন ভালো হওয়ার কথা থাকলেও বর্তমানে ধানে ব্যাপক আকারে ব্লাস্ট ও কারেট পোকা লেগেছে। যার ফলে ভালো ফসলের আশা হারিয়ে ফেলেছি। আমরা ইতিমধ্য বেশ কিছু বালাই নাশক স্প্রে করলেও শতভাগ ফলাফল পাইনি। এছাড়া ভালো কোন পরামর্শ নেওয়ার জন্য কৃষি অফিসারের দেখা পাওয়ায় যাচ্ছে না। রুহিয়ায় কীটনাশক কিনতে আসা রাজাগাঁও ইউনিয়নের মজিবর রহমান জানান, কারেট পোকার জন্য ধানের কিছু অংশ ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে যা থেকে ফলনের কোন আসা নেই। রুহিয়ায় কীটনাশক ব্যবসায়ী সুলতান আলী ও নজরুল ইসলাম জানান, গত বছরর তুলনায় এবার আমন মৌসুমে কৃষক ধানের ব্লাস্ট দমন ব্যাকট্ররিয়া ও ছত্রাক নাশক এবং কারেট পাকা দমন পাইমট্রাজিন + নাইটনপাইরাম, এসিফেড গ্রুপের কীটনাশক কৃষক বেশির ভাগ ব্যবহার করছেন। কৃষকর চাহিদা মোতাবেক আমরা উক্ত গ্রুপের কীটনাশক বিক্রি করছি। রুহিয়া পশ্চিম ইউনিয়মের দায়িত্ব থাকা উপ-সহকারী ল
কৃষি অফিসার সুবাস চন্দ্র রায় ও রাজাগাঁও ইউনিয়নের দায়িত্ব থাকা উপ-সহকারী কৃষি অফিসার আলী হাসন বলন, আমরা এ বিষয় কৃষকর সাথে উঠান বৈঠক করে বিভিন পরামর্শ প্রদান করছি এবং কি এসব রাগ দূরিকরণে লিফলেট বিতরণ করেছি। এ ব্যাপার জানতে চাইল ঠাকুরগাঁও জেলা কৃষি অতিরিক্ত উপ-পরিচালক কৃষিবিদ আনিছুর রহমান জানান, আমরা ব্লাস্ট এবং কারেট পোকা দমন সার্বক্ষনিক মনিটরিং করছি।

Leave a Reply