মোসারাত জাহান মুনিয়ার আত্মহত্যার ঘটনায় বিলাশবহুল একটি গাড়ীকে ঘিরে তৈরি হয়েছে রহস্য|দেশবানী

Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ডেস্ক রিপোর্ট: মোসারাত জাহান মুনিয়ার আত্মহত্যার ঘটনায় বিলাশবহুল একটি গাড়ীকে ঘিরে তৈরি হয়েছে রহস্য। মুনিয়ার বড় বোন নুসরাত জাহান ঘটনাস্থলে আসেন একটি দামী গাড়ীতে। সেই রাতে এই গাড়ীর অস্বাভাবিক আনাগোনা ভাবিয়ে তুলেছেন কর্মকর্তাদের। কিভাবে এই দামী গাড়ী পেলেন মুনিয়ার বড় বোন নুসরাত জাহান। ঢাকা মেট্রো-ঘ-১১-৭১১০ নম্বরের এই বিলাশবহুল গাড়ীটির মালিককে খুঁজতে মাঠে নেমেছেন বিভিন্ন সংস্থা।,

একজন কর্মকর্তা জানান, গত সোমবার সন্ধ্যায় গুলশান-২ এর ১২০ নম্বর রোডের একটি ফ্ল্যাট থেকে মোসারাত জাহান মুনিয়ার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার হয়। ওইদিন মুনিয়ার বড় বোন নুসরাত জাহান ঘটনাস্থলে আসেন একটি দামী গাড়ীতে। তার নম্বর হলো ঢাকা-মেট্রো-ঘ-১১-৭১১০। প্রশ্ন উঠেছে মুনিয়ার বোন নুসরাত জাহান ঘটনার দিন কুমিল্লা থেকে ঢাকায় এসেই হঠাৎ এই দামী গাড়ী কই পেলেন? কারা এই গাড়ী ব্যবহারের জন্য দিলো তাকে। এই দামী গাড়ীর মালিক কে? সেই বিষয়ে খবর নেওয়া হচ্ছে।

বিআরটিএ সূত্র জানিয়েছে, ১৭ জানুয়ারি ২০০৬ সালে এই গাড়ীটি কোরিয়ান মালিকানাধীন বায়িং হাউজ গিলকো ইন্ডাস্ট্রি লিমিটেড- এর নামে রেজিস্ট্রেশন করা হয়। কোম্পানীর মালিকের নাম এইচ কে কিম। ঠিকানা দেওয়া ছিল বাসা নম্বর ১৩, রোড নম্বর ২৮, বনানী ঢাকা। কিন্ত এই কোম্পানীর কার্যক্রম ২০০৯ সালে বন্ধ হয়ে যায়। এরপরে থেকে তাদের এই গাড়ী কে ব্যবহার করছেন তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। বিআরটিএ জানিয়েছে, ৩৫০০ সিসি’র হুন্দাই কোম্পানীর এই জীপ গাড়ীর ট্র্যাক্সও বকেয়া রয়েছে। কাগজপত্র আপডেট করতে বিআরটিএ তে আসেননি কেউ।

Leave a Reply