দেশ বাণী ডেস্ক সারা বাংলা

জেলা কর্তা জানেনা উপজেলা কর্তার অবস্থান|Deshbani

Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি:

এবছর সরকারের নির্বাহী আদেশ ছিল ঈদুল ফিতরের ছুটিতে কর্মস্থলেই অবস্থান করতে হবে সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের। এছাড়া ছুটি শেষে গত রবিবার (১৬ মে) সকল কর্মকর্তাদের^ কর্মস্থলে যোগদানের নির্দেশ থাকলেও আমলে নেইনি জয়পুরহাটের পাঁচবিবি বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কার্যালয়ের উপ-সহকারী প্রকৌশলী সালাহ্ উদ্দিন। এমনকি সপ্তাহ জুরেই অফিস করেননি তিঁনি। অসুস্থ্যতার অজু হাতে ছুটিতে থাকার কথা বললেও ছুটির কথা জানেনা জেলা কর্মকর্তা। তিঁনি অফিসে না আসায় ফিরে যাচ্ছে সেবা গ্রহীতারা একারনে বাধাগ্রস্থ হচ্ছে সরকারের উন্নয়ন কাজ।’

রবিবার থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত অফিসে খোজ নিয়ে জানাযায়, উপ-সহকারী প্রকৌশলী সালাহ্ উদ্দিন অনুপস্থিত। বুধ ও বৃহস্পতিবার সরেজমিনে দেখাযায় অফিস পিয়ন আমিনুল ইসলাম ও মাষ্টার রোলে কর্মরত তাপস সরকার ফাইল নাড়াচারা করছেন। আপনাদের স্যার কোথায় জানতে চাইলে তারা বলেন, স্যার অসুস্থ্য এবং ছুটিতে আছেন।’

উপজেলার আওলাই ইউনিয়নের কাঁকড়া পিংলু গ্রামের অলিউজ্জামান বলেন, বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কার্যালয়ের অনিয়মই যেন এখন নিয়মে পরিনত হয়েছে। এ অফিসের নীতিমালা বহিরভুত কাজ ও নানা অনিয়মের বিরুদ্ধে আমি আদালতে মামলাও করেছি বলেন তিনি। উপজেলার ভীমপুর গ্রামের কৃষক এমদাদুল হক বলেন, এক বছর আগে সেচের জন্য আবেদন করেছি। অফিসের লোক এসে মাপযোগ নিয়ে গেলেও আজ দিব, কাল দিব বলেও এখনও কাজের কাজ হয়নি। ঈদের পর অফিসে গিয়ে জানতে পারি কর্মকর্তা ছুটিতে আছে।

পাঁচবিবি বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কার্যালয়ের উপ-সহকারী প্রকৌশলী সালাহ্ উদ্দিন বলেন, আমি অসুস্থ্যজনিত কারনে ছুটিতে থাকায় অফিসে যাইনি। আপনার ছুটির বিষয়টি জেলা কর্মকর্তা জানে কি না? এমন প্রশ্নে তিঁনি বলেন, হ্যাঁ জানেন। আমি জেলা কার্যালয়ে লিখিত ছুটির আবেদন করেছি।

পাঁচবিবি অফিসের উপ-সহকারী প্রকৌশলীর ছুটির বিষয়ে জানতে চাইলে জয়পুরহাট জেলা অফিসের নির্বাহী কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম বলেন, অফিসে তার থাকার কথা। তিনি কি লিখিত ছুটির আবেদন করেছে জানতে চাইলে জেলা কর্তা বলেন, না। মৌখিক ছুটি চাইলেও অফিসের বিদ্যুৎ বিল দেওয়ার জন্য গত ১৯ মে তাকে অফিস করতে বলেছিলাম বলেও জানান জেলা কর্তা।

Leave a Reply