টানা তিনদিন ধরে প্লাবিত রাঙ্গাবালীর ১৫ গ্রাম : ক্ষতিগ্রস্থ সাড়ে পাঁচ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ
আবহাওয়া দেশজুড়ে দেশবানী

টানা তিনদিন ধরে প্লাবিত রাঙ্গাবালীর ১৫ গ্রাম : ক্ষতিগ্রস্থ সাড়ে পাঁচ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ

Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আ.খ.ম রাকিব হোসাইন,রাঙ্গাবালী – পটুয়াখালী প্রতিনিধি:

পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার ১৫টি গ্রামসহ নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। ডুবেছে বসতঘর, প্রতিষ্ঠান। ভেসে গেছে পুকুর ও মাছের ঘের। ঘূর্ণিঝড় যশ, অন্যদিকে পূর্ণিমা। এই দুয়ে মিলে ফুঁলেফেপে উঠেছে উপকূলের নদ-নদীর পানি। ফলে ভাঙা বেড়িবাঁধ দিয়ে জোয়ারের পানি ঢুকেছে গ্রামে।
গত মঙ্গবার সকাল ৮টা থেকে বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত তিন দিন একটানা জোয়ারের পানিতে এ ক্ষতি হয়। স্বাভাবিকের চাইতে এ সময় ৪-৭ ফুট উচ্চতর পানি প্রবাহিত হয় ওইসব গ্রামে।

এদিকে গত তিন দিনের জোয়ারে যেসকল বেড়িবাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং অনেক আগ থেকে যেসকল বাঁধ ভাঙা তা দ্রুত সংস্কারের উদ্যোগ গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার মানুষরা। তারা বলছেন, ‘ত্রাণ চাই না, বাঁধ (বেড়িবাঁধ) চাই।’ প্রশাসনের দেয়া তথ্যানুযায়ী, এবারের তাণ্ডবে সাড়ে ৫ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

জানা গেছে, ভাঙা বেড়িবাঁধ দিয়ে পানি ঢুকে এ উপজেলার চরমোন্তাজ ইউনিয়নের নয়ার চর, চর আন্ডা, ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের কোড়ালিয়া, ভুইয়ারহাওলা, কাউখালী, চরনজির, চরইমারশনসহ বেড়িবাঁধবিহীন রাঙ্গাবালী ইউনিয়নের চরকাশেম, কলাগাছিয়াসহ অন্তত ১৫টি গ্রাম ও নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়।

স্থানীয়রা জানান, টানা তিন দিন ঘূর্ণিঝড় যশের প্রভাবে আমাদের বেড়িবাঁধ ছিড়ে গেছে। এরকম চলতে থাকলে আমরা সমস্যায় পরে যাবো। আমরা ত্রাণ চাই না চাই টেকসই বেড়িবাঁধ।

ছোটবাইশদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান এবিএম আব্দুল মান্নান বলেন, কোড়ালিয়ার ভাঙা বাঁধ দিয়ে জোয়ারের পানি ঢুকে পুরো গ্রাম প্লাবিত হয়। ইউপি চেয়ারম্যানদের দাবি, ভাঙা বেড়িবাঁধগুলো দ্রুত মেরামতের উদ্যোগ নেয়া জরুরি।

Leave a Reply