ডিমলায় উপ-সহকারী কৃষি অফিসারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ | Deshbani

Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

স্টাফ রিপোর্টার: নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরে কর্মরত ফাইজুল বারী নামে উপ-সহকারী কৃষি অফিসারের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ ও দূর্নীতির অভিযোগ করে লিখিত অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী এক কৃষক।’

উপ-সহকারী কৃষি অফিসার ফাইজুল বারীর বিরুদ্ধে উপজেলার পশ্চিম ছাতনাই ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের কালীগঞ্জ গ্রামের জাহিদুল ইসলামের ছেলে কৃষক রওশন আলী, গত ১-জুন-২০২১ ইং রংপুর অঞ্চলের কৃষি সম্প্রসারণ এর অতিরিক্ত পরিচালক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সভাপতি-সম্পাদক ডিমলা রিপোর্টার্স ইউনিটি ও সভাপতি-সম্পাদক ডিমলা প্রেস ক্লাবে অনুপিলি দিয়ে উপজেলা কৃষি অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন।’

ডিমলায় উপ-সহকারী কৃষি অফিসারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

কৃষক রওশন আলী লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন, উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে সেচ পাম্প (শ্যালো মেশিন) দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে গত ২০ মাস পূর্বে ৫ হাজার টাকা ও পাঁচজন কৃষকের পার্সপোট সাইজের এককপি করে রঙিন ছবি এবং প্রত্যেকের জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি সুকৌশলে জমা নেন। টাকা দেওয়ার এক বছর পার হলে কেন ধরনের মেশিন না পেয়ে উক্ত বিষয়ে (এসএএও) ফাইজুল বারীর সাথে যোগাযোগ করলে মেশিন দেয়ার কথা বলে কিন্তু না দিয়ে দিনের পর দিন কালক্ষেপণ ও টালবাহানা করে আসছিলো।

অভিযোগে আরও উল্লেখ করেন, উক্ত ব্যক্তির সাথে পরবর্তী ৩/৪ মাস পরে যোগাযোগ করলে তিনি ডিমলা উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে লালমনিরহাট জেলায় বদলী হয়েছেন বলে জানান। অফিস সুত্রে জানা যায়, লালমনিরহাট জেলায় বদলী হননি তিনি উপজেলার পশ্চিম ছাতনাই ইউনিয়ন থেকে একই উপজেলার নাউতারা ইউনিয়নে স্থানান্তর বদলী হয়েছেন।

বিভিন্ন সুত্রে জানা যায়, উপজেলার পশ্চিম ছাতনাই ইউনিয়নের দায়ীত্বকালীন উপ-সহকারী কৃষি অফিসার (এসএএও) ফাইজুল বারী দীর্ঘদিন উক্ত ইউনিয়নে নানাবিধ অনিয়ম ও দুর্নীতি করে আসছিলেন।

উপজেলা কৃষি অফিস

সুত্রে জানা গেছ বিভিন্ন প্রদর্শনী ও কৃষি যন্ত্রপাতি দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে এলাকার কৃষক ও সাধারণ মানুষের কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নিতো। এছাড়াও পশ্চিম ছাতনাই ইউনিয়নে অবস্থিত ঠাকুরগঞ্জ হাট-বাজারের সার ও কীটনাশক বিক্রেতাদের নিকট থেকে লাইসেন্স করে দেওয়ার নামে অর্থ নেওয়ার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি অফিসার ফাইজুল বারীর সাথে মুঠোফোনে অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি তার বিরুদ্ধে আনিতো অর্থ আত্মসাৎ এর অভিযোগটি অস্বীকার করেন৷’

এবিষয়ে উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ সেকেন্দার আলীর সাথে কথা হলে তিনি অভিযুক্ত এসএএও ফাইজুল বারীর বিরুদ্ধে অভিযোগটি কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার শহীদুল ইসলাম এর কাছে বর্তমান তদন্তাধীন রয়েছে বলেন৷ তিনি আরও বলেন, অর্থ আত্মসাৎ এর বিষয়টি তদন্তে সত্যতা পাওয়া গেলে আমার উর্ধতন কর্মকর্তাকে অবগত করে তাকে শাস্তিযোগ্য বদলীর ব্যবস্থা করা হবে।

Leave a Reply