দেশ বাণী ডেস্ক সারা বাংলা

জলঢাকায় রাজ টিভিতে সংবাদ প্রকাশের পর হুইলচেয়ার পেলেন প্রতিবন্ধী

Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


খুশি মনি  ,নীলফামারী,প্রতিনিধি:
“১২ বছর থেকে বাক ও শারীরিক প্রতিবন্ধী ছেলের সেবা করতে কঠিন রোগে আক্রান্ত মা! প্রয়োজন একটা হুইলচেয়ার!” শিরোনামে গত ৩০ মার্চ ইউটিউব চ্যানেল “RAZ TV” তে একটি ভিডিও প্রকাশিত হয়েছিল। এই সংবাদ প্রকাশের পরে এগিয়ে আসে ‘ডু সামথিং ফাউন্ডেশন’ নামে সংস্থা। এই সংস্থা দুইজন প্রতিবন্ধীকে ২টি হুইলচেয়ার দিয়েছেন।

জানা গেছে,নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার কৈমারী ইউনিয়নের তালুকবদি এলাকার মৃত আলতাব হোসেনের ছেলে বাক ও শারীরিক প্রতিবন্ধী স্বাধীন আলমকে নিয়ে রাজ টিভি চ্যানেলে প্রকাশিত সংবাদ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক সাড়া পায় এবং আলোচনায় উঠে আছে।

এ সংবাদ উপজেলা প্রশাসনের নজরে না আসলেও ওই প্রতিবন্ধীর হুইলচেয়ার কিনে দেওয়ার জন্য বিভিন্ন স্থান থেকে যোগাযোগ করেন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান।

অবশেষে প্রকাশিত খবরের দীর্ঘ অপেক্ষার পর শুক্রবার ৪ (জুন) বিকেলে উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার মাঠ সংলগ্ন মাঠে ডু সামথিং ফাউন্ডেশন সংস্থা হুইলচেয়ার প্রতিবন্ধীর হাতে তুলে দিয়েছেন।

একই সাথে প্রতিবন্ধী মায়া নামে অপর একজনকেও হুইলচেয়ার দিয়েছে।

আরও জানা গেছে, স্বাধীন আলম (১২) জন্ম থেকেই বাক ও শারীরিক প্রতিবন্ধী। তার দুটি পা নষ্ট ও চলাফেরা করতে পারে না। সে কথা বলতেও পারেন না। শুধু ইশারা ইঙ্গিতে একটু বলতে পারে। তার মা খাতুন সারাদিন ছেলে পিছনে খরচ করেন। মায়ের কোলে যেন স্বাধীনের চলাচলের একমাত্র সম্বল ছিলো।

এতে সংসারের অন্য কোন কাজ কর্ম করতে পারতো না। অভাবের সংসারে এভাবে আর কতদিন? ইউটিউব চ্যানেল রাজ টিভি’র প্রতিষ্ঠা চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম রাজ কে জানালে,তার একটি হুইলচেয়ার প্রয়োজন এই মর্মে “রাজ টিভি”ইউটিউব চ্যানেলে স্বচিত্র একটি ভিডিও আকারে সংবাদ প্রকাশিত হয়।’

এই খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এলাকাসহ দেশের বিভিন্ন মহলে ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়। অনেক ব্যক্তি হুইল চেয়ার দেওয়ার জন্য এ প্রতিনিধির সাথে যোগাযোগ করেন।’

বিশেষ করে জলঢাকার মেয়ে নারী সংবাদকর্মী রাজিয়া সুলতানা প্রথমে প্রতিবেদককের সাথে যোগাযোগ করে বলেন,শিঘ্রই হুইলচেয়ারের ব্যবস্থা হবে। পরে সামাজিক সংগঠন জীবনতরী পাঠশালার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক অপিজার রহমানের মাধ্যমে “Do Something Foundation” এর সহযোগিতায় হুইল চেয়ার উপহার পেলেন স্বাধীন এবং মায়া।,

এসময় উপস্থিত ছিলেন ডু সামথিং ফাউন্ডেশন এর প্রতিনিধি আব্দুর রহিম,জীবনতরী পাঠশালার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি অপিজার রহমান,সাংগঠনিক সম্পাদক হাসিবুল ইসলাম,দপ্তর সম্পাদক সুমন ইসলাম ও সাংবাদকর্মী রাজিয়া সুলতানা প্রমূখ।

এদিকে হুইল চেয়ার পেয়ে আনন্দ আর খুশিতে বারবার ইশারা-ইঙ্গিতে চিৎকার করছিলেন স্বাধীন ও মায়া। স্বাধীনের মা হালিমা খাতুন বলেন,স্বাধীনকে কোলে করে চলাফেরা করতে করতে আমার কিটনির সমস্যা দেখা দিয়েছিলো। এখন আমার কষ্টটা দুর হল।হুইলচেয়ার পেয়ে আমি অনেক খুশি।

Leave a Reply