কিশোরগঞ্জে ক্রেতা না থাকায় সুর্যমুখীর বিচি নিয়ে বিপাকে কৃষক

Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

রউফুল আলম,স্টাফ রিপোর্টার, কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী:

উৎপাদিত ফসল বিক্রি করতে না পেরে চরম বিপাকে পড়েছেন নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার সৃর্যমুখী চাষীরা। উপযুক্ত ক্রেতার অভাবে এ সমস্যা দেখা দিয়েছে। 

জানা গেছে, নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলা কৃষি দপ্তরের পরামর্শে প্রথমবারের মত এ উপজেলায় প্রায় তিনশতাধিক কৃষক ৪০৬ বিঘা জমিতে সুর্যমুখী ফুলের চাষ করে। সঠিক নজরদারি এবং পরিচর্যার কারণে ফলন ও হয়েছে বাম্পার। কিন্তু সুর্যমুখীর সঠিক ব্যবহার না জানা এবং ক্রেতা না থাকার কারণে কৃষকের উৎপাদিত ফসল বাড়িতে নষ্ট হতে বসেছে।’

কিশোরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম বাবু বলেন, আমি কৃষি অফিসের পরামর্শে তিনবিঘা জমিতে সুর্যমুখী ফুলের চাষ করেছিলাম। তিনবিঘা জমিতে আমার ১০ মন সুর্যমুখীর বিচি হয়েছে। কৃষি অফিস বলেছিল সুর্যমুখী চাষের পর তারা বিক্রির সব ব্যাবস্থা করে দেবেন। কিন্তু এখন তারা বিক্রির ব্যবস্থাতো দুরে থাক সুর্যমুখী চাষিদের দিকে ফিরেও তাকাচ্ছেনা। তাই কৃষকরা সুর্যমুখীর বিচি নিয়ে বিপাকে পড়েছেন।’

 উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান বলেন, আমরা কৃষি দপ্তরের পক্ষ থেকে ঢাকার এক ব্যবসায়ীর সাথে সুর্যমুখীর বিচি বিক্রির জন্য যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছি। আশা করছি দু’একদিনের মধ্যে একটা ব্যবস্থা করতে পারব। আমরা সুর্যমুখী চাষীদের সাথে যোগাযোগ করে তাদের উৎপাদিত সুর্যমুখী বিচি বিক্রির চেষ্টা করছি। তিনি আরো বলেন, যেহেতু কিশোরগঞ্জে এবার প্রথম তাই একটু সমস্যা হচ্ছে। পরবর্তীতে এ সমস্যা আর থাকবেনা।-Bd news

Leave a Reply