দেশ বাণী ডেস্ক দেশজুড়ে

ভূমিহীনদের তালিকায় নাম থাকলেও পায়নি প্রধানমন্ত্রীর ঘর জলঢাকায় সরকারি ঘর চান ভূমিহীন পরিবার

Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


আব্দুল মালেক, নীলফামারী প্রতিনিধিঃ

অনলাইনে ভূমিহীনদের তালিকায় নাম থাকলেও মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহারকৃত ঘর পায়নি নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার কৈমারী ইউনিয়নের ০৮নং ওয়ার্ড আলশিয়া পাড়া গ্রামের মৃত. আল্লী মামুদের পরিবার। তবে বিষয়টি ইউপি চেয়ারম্যান রেজাউল হক বাবুকে মুঠোফোনে জানালে তিনি কতৃপক্ষকে সুপারিশ করে তাদেরকে ঘর নিয়ে দিতে বলেন।’


টাকা যার, কাজ হবে তার, টাকা ছাড়া গরীবের কোন কাজেই হয়না। এভাবেই জানালেন, মৃত. আল্লী মামুদের স্ত্রী জবেদা খাতুন(৭০)। অতীত জীবনের গল্প বলতে গিয়ে কেঁদে ফেলেন এই বিধবা নারী। দীর্ঘশ^াস ফেলে তিনি জানান, সর্বহারা তিস্তা নদী কেড়ে নিয়েছেন তাদের সবকিছুই।’


অবশেষে মাথাঁেগাজার ঠাঁই মেলে তহশিলদার (অবঃ) তফেল উদ্দিনের জমিতে। এলাকাবাসির সার্বিক সহযোগীতায় তুলেছিলেন একটি টিন শেডের ছাপড়ী। দু-বেলা দু-মুঠো খাবারের জন্য খালি হাতের উপর শুরু হয় তাঁদের জীবন যুদ্ধ। কয়েক বছর পর আল্লী মামুদ চলে যান না ফেরার দেশে। জীবিকার তাগিদে সন্তানদের নিয়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে কাজ করতেন স্ত্রী জবেদা খাতুন। দুই ছেলে এক মেয়েকে নিয়ে কোনরকম দিন কাটতেন তিনি। মেয়েকে বিবাহ দিয়ে, ছেলেদের সাথে নিয়ে থাকেন একই ঘরের চালাতে। বড় ছেলে হাসানুজ্জামান(৪২) এবং ছোট ছেলে আমিনুর রহমান(৩৫)কে বিয়ে দেয়ায় ছেলে, দুই বউমা এবং নাতিদের নিয়ে ঘর না থাকার কারনে চরম সংকটে পড়তে হয় তাদের। অন্যের জমিতে দীর্ঘদিন বসবাস করে আসলেও আর পারছে না তারা থাকতে। বাড়ি সরিয়ে নিতে বারবার তাগিদ দিচ্ছে তফেল উদ্দিনের ছেলেরা। প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পাবে বলে আশা এই পরিবারটির।


জবেদা খাতুন কান্নাস্বরে এই প্রতিবেদককে বলেন, মুই কোনরকম বেঁচে আচুং বাবা, পুরোনো কথা মনত পইলে কলিজা শুকিয়া যায়। শেষ বয়সে এসেও কোন শান্তি পানুংনা, খালি চিন্তা হয় ছোয়া গুলাক নিয়া। ছোয়ারঘর দিনমিলে দিন খায়, সরকার মোক একটা বিধবা ভাতার কার্ড দিছে তাকে দিয়া কোনমতে চলং। শুনছুং সরকার বোলে গরীব মাইনষক ঘর দেয়ছে। সরকারের কাছোত মোর এ্যানাদাবি, মোর ছোয়া দুইটাক থাকার ব্যবস্থা করি দিবে।


ইউপি সদস্য তমিজ উদ্দিন মুঠোফোনে বলেন, জবেদা খাতুনের পরিবার ভূমিহীন, অনলাইনে ভূমিহীনদের তালিকায় তাদের নাম দেয়া আছে।
সরকারি ঘরে তাঁরা থাকতে চাইলে তাদের জন্য ঘর বরাদ্দ দেয়ার আশ্বাস দিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসান।- Bd news

Leave a Reply