দেশ বাণী ডেস্ক

ইন্দোনেশিয়ায় ভ্যাকসিন নেওয়া ১২ চিকিৎসকের করোনার মৃত্যু | Deshbani

Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

দেশবানী অনলাইন ডেস্ক ।। “ইন্দোনেশিয়ায় ভ্যাকসিন নেওয়া ১২ চিকিৎসকের করোনার মৃত্যু”।ইন্দোনেশিয়ায় ভ্যাকসিন নেওয়া ১২ জনেরও বেশি চিকিৎসক করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) মারা গেছেন।’

দেশটির মেডিকেল অ্যাসো’সিয়েশন এ তথ্য জানিয়েছে। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশটিতে করোনার নুতন ভ্যারিন্টের তীব্র সংক্রমণ দেখা দিয়েছে। এমনকি চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরাও ব্যাপক’ভাবে আক্রান্ত হয়েছে। খবর আলজাজিরা।”


শনিবার (২৬ জুন) দেশটিতে নতুন করে ২০ লাখ পাঁচ হাজার করোনার রোগী শনাক্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।,

গত সপ্তাহে যা ছিল ২৭ কোটি (২৭০ মিলিয়ন)। এছাড়া জাকার্তাসহ আশ’পাশের উচ্চ সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া শহর’গুলোতে হাসপাতালে রোগী ভর্তির হার ৭৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।


মহামারি শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত এক হাজার স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় প্রাণহারিয়েছেন। গতকাল শুক্রবার (২৫ জুন) দেশটির মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন জানায়, আক্রান্তদের মধ্যে ৪০১ জন চিকিজৎসক রয়েছেন। এর মধ্যে ১৪ জন চিকিৎসক পুরো’পুরি ভ্যাকসিন নিয়ে’ছিলেন।,


দেশটির করোনা প্রতিরোধ কমিটির প্রধান মোহাম্মদ আদিব খুমাইদি জানান, করোনায় আক্রান্ত’দের মধ্যে আর কেউ ভ্যাকসিন নিয়েছিলেন কি না— তা খতিয়ে দেখতে তথ্যগুলো আবারও পর্যা’লোচনা করা হচ্ছে।

ইন্দোনেশিয়ায় ভ্যাকসিন নেওয়া
প্রতীকী ছবি


স্বাস্থ্যকর্মী’সহ অন্যান্য’দের মাঝে আবারও করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়া চীনের উৎপাদিত ভ্যাক’সিনের কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।’

যখন আগামী বছর থেকে ১৮ কোটি নাগরিককে ভ্যাকসিন প্রয়োগের জন্য চীনের ওপর ইন্দোনেশিয়া।


চলতি মাসে দেশটির সেন্ট্রাল জাভা প্রদেশে ৩০০ জন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। যাদের সবাই করোনার ভ্যাকসিন নিয়েছেলেন। তাদের মধ্যে ১২ জনেরও অধিক’কে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে।


দেশটিতে নতুন ভ্যারি’য়েন্টের করোনা’ভাইরাসের সংক্রমণে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।’যা সর্ব প্রথম ভারতে শনাক্ত করা হয়।’


স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে ওই প্রতেবেদনে বলা হয়, দেশটির রাজধানী জাকার্তার হাসপাতালগুলোতে করোনার রোগীর সংখ্যা ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পেয়েছে। এর ফলে অতিরিক্ত রোগীদের চাপ সামাল দিতে হাসপাতালগুলোর বাহিরে জরুরি ভিত্তিতে তাবু নির্মাণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *