দেশ বাণী ডেস্ক সারা বাংলা

নীলফামারীর জলঢাকায় ভারতীয় ছয়টি চোরাই গরুসহ আটক-০৪ থানায় মামলা

Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


আব্দুল মালেক, নীলফামারী প্রতিনিধিঃ “নীলফামারীর জলঢাকায় ভারতীয় ছয়টি চোরাই গরুসহ আটক-০৪ থানায় মামলা”। করোনা মহামারীর মধ্যে যখন চলছে সারাদেশে সরকার ঘোষিত লকডাউন, আর এই লকডাউনকে উপেক্ষা করে ভারত থেকে চোরাই পথে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে প্রতিদিনেই আসছে শতশত ভারতীয় গরু।

পাচারকারী গরুর সাথে ভারত থেকে পাচার হচ্ছে মহামারী করোনাও। যার ফলে করোনার ঝুঁকিতে রয়েছে নীলফামারীসহ ভারত সীমান্তে কয়েকটি জেলার প্রায় এক কোটি মানুষ।’


পাচারকারীদের মধ্যে নীলফামারী জেলার প্রভাবশালী কিছু রাজনৈতিক নেতার ছত্রছায়ায় জেলার ডোমার-ডিমলা উপজেলা হয়ে জলঢাকা থেকে দেশে বিভিন্ন এলাকায় যাচ্ছে এসব চোরাই গরু।’

নীলফামারীর জলঢাকায় ভারতীয়

সোমবার গভীর রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে জলঢাকা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহবুব হাসানের নেতৃত্বে পুলিশ, বিজিবি ও আনসার বাহিনীর যৌথ অভিযানে উপজেলার শিমুলবাড়ী ইউনিয়নের বঙ্গবন্ধু সরকারি কলেজ মাঠ থেকে ভারতীয় ছয়টি গরু ও পাচারকারী চক্রের চারজনকে আটক করে। রাতেই গরু গুলো জব্দ করে এবং পাচারকারী চারজনের নামে জলঢাকা থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়, মামলা নং-০৪/২১।

মামলায় ছয়টি গরুর আনুমানিক মুল্য দেখানো হয়েছে ৮ লক্ষ টাকা। এই মামলার বাদী মীরগঞ্জ পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই সফিকুল ইসলাম। আসামীরা হলেন, ইসমাঈল হোসেন বাহার, পিতা মৃত.সালেহ আহমেদ, সাং দুই নং হাটগাও, দাউদ হোসেন মুন্না পিতা মৃত. সফিউল্লাহ সাং বদ্রগাও উভযের থানা সোনাইমুড়ি জেলা নোয়াখালী, আলী হোসেন পিতা মৃত. সাতারু মামুদ, আমিজার রহমান পিতা মৃত. খইরুদ্দিন উভয়ের সাং আরাজী শিমুলবাড়ী থানা জলঢাকা, জেলা নীলফামারী।


মামলার আয়ু মীরগঞ্জ পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মোঃ আব্দুর রহিম জানান, গরুসহ আসামীদের আদালতে নেওয়ার পর গরু গুলো নিলামের জন্য আদালতে আবেদন করা হবে। তিনি জানান, গরু ছয়টির মালিকানা কাগজ পত্রাদী এখন পযন্ত দেখাতে পারেনি, যদি দেখাতে পারে গরু দেয়া যাবে কিনা তা আদালত বিবেচনা করে দেখবে।


জলঢাকা অফিসার ইনচার্জ ফিরোজ কবির জানান, সোমবার রাতে অবিযান চালিয়ে ভারতের চোরাইকৃত ছয়টি গরু ও চারজনকে আটক করা হয়েছে। আমার একজন এসআইকে বাদী করে চারজনের বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছি। তাদেরকে আদালতে চালান করা হবে এবং আইনগত ভাবে গরু গুলো নিলামের জন্য আদালতে আবেদন করা হবে।


উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসান মুঠোফোনে বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে গভীর রাতে পুলিশ, বিজিবি ও আনসার বাহিনীর যৌথ অভিযান চালিয়ে শিমুলবাড়ী বঙ্গবন্ধু সরকারি কলেজ মাঠ থেকে ভারতীয় ছয়টি গরু ও পাচারকারী চক্রের চারজনকে আটক করি। মালিকানা কাগজ-পত্রাদী দেখাতে না পারায় নিয়মিত মামলার জন্য থানায় পাঠানো হয়।-দেশবানী নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *