দেশ বাণী ডেস্ক সারা বাংলা

বিকল্প মাদকের সয়লাব, আসক্তিতে যুবসমাজ, সেবনে নেত্রকোণায় মৃত্যু ৫০

Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মুহা. জহিরুল ইসলাম অসীম।। বিকল্প মাদকের সয়লাব, আসক্তিতে যুবসমাজ, সেবনে নেত্রকোণায় মৃত্যু ৫০, সরকার ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা।।বেপরোয়া বাবে মাদকের সবত্র সয়লাব হওয়া দিনকেদিন ধংশের দ্বারপ্রান্তে উপনীত হচ্ছে আমাদের যুবসমাজ।’


মাদক কেন্দ্রিক নেত্রকোণা জেলায় গড়ে উঠেছে অনেক সঙ্গবদ্ধ কিশোর মাদকসেবী। মদ,গাঁজা, ড্যান্ডি, হেরোইন, ফেন্সিডিল,ইয়াবা, প্যাথিডিন, খঁঢ়রমবংরপ লুপিজেসিক (ব্রæপেনাপাইন ইনজেকশন) সহ সকল মাদকের ছড়াছড়িতে ধ্বংস হচ্ছে যুব সমাজ।”

বিকল্প মাদকের সয়লাব

নেত্রকোণায় ২০২১ সাল পর্যন্ত মেধাবী ছাত্রসহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ মাদকাসক্তির কারণে মৃত্যুবরন করেছে প্রায় অর্ধশত। মাদক নির্ম‚ল অভিযানে এযাবৎকাল প্রায়, ৪ কোটি টাকা ম‚ল্যের মাদক উদ্ধার এবং মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার প‚র্বক মামলা করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর ও টাস্কফোর্স কমিটি।,

জিরো টলারেন্স নিয়ে দেশজুড়ে যখন ইয়াবার বিরুদ্ধে মাঠে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তখন হেরোইন, ইয়াবা এর বিকল্প হিসেবে ওমরফিন ১০ মিঃগ্রাঃ (ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীদের ব্যবহৃত) ট্যাবলেট বর্তমানে মাদকসেবীদের কাছে বিকল্প মাদক হিসেবে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেছে বলে বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা যায়।

এগুলো সরবরাহ করছে এক শ্রেণীর অসাধু ঔষদ ব্যবসায়ী । ১০ টাকার ওমরফিন ১০ মিঃগ্রাঃ ট্যাবলেট কালোবাজারে ২০০ টাকা পর্যন্ত বেচাকেনা হচ্ছে। মাদকসেবীদের কাছে এর বিকল্প হিসেবে জনপ্রিয়তা পেয়েছে ব্যথানাশক ট্যাবলেট ট্যাপেন্টাডল।

মাদক নিরাময় কেন্দ্রে চিকিৎসাধীন মাদকাসক্তদের সঙ্গে কথা বলে এই ধারণা পাওয়া যায়। ইতিমধ্যে প্রয়োজনীয় পরীক্ষা -নিরীক্ষার পর মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে ট্যাপেন্টাডল ট্যাবলেটকে ‘খ’ তফসিলভুক্ত করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্ততর।’

বাংলাদেশে ট্যাপেন্টাডল ট্যাবলেট সংকট থাকায় পার্শ্ববতী দেশ ভারত থেকে সীমান্ত দিয়ে চোরাই পথে আনা হচ্ছে ট্যাপেন্টাডল ট্যাবলেট যা ইয়াবার বিকল্প হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে।’

সম্প্রতি ৯ আগষ্ট ২০২১ অবৈধ পথে আসা ইয়াবার বিকল্প ছয় হাজার পিস ভারতীয় ট্যাপেন্টাডল ট্যাবলেট দ‚র্গাপুর উপজেলার বারমারি সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে আসলে ৩১-বিজিবি সদস্যরা আটক করে।,

প্যাথিড্রিন এর বিকল্প হিসেবে খঁঢ়রমবংরপ ইনজেকশন মাদকসেবীদের খুুুবই জনপ্রিয় একটি মাদক। খঁঢ়রমধপরপ মোম্বাই, ইন্ডিয়ার তৈরী উত্তেজক একটি ড্রাগ। খঁঢ়রমবংরপ (ইঁঢ়ৎবহড়ৎঢ়যরহব) ইনজেকশন এর বিকল্প হিসাবে ঘধষনঁহ (যন্ত্রনা নাশক) উরধুবঢ়ধস (ডাইয়াজিপাম) গ্রহণ করছে মাদকসেবীরা।,

নেত্রকোণা ড্রাগ সুপার মোঃ আব্দুর রশিদ জানান, এব্যাপারে ঔষধ প্রশাসনের পক্ষ থেকে ফার্মেসী ও সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেওয়া আছে। প্রায়ঃশই ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে অভিযান করা হয়।’

ময়মনসিংহ, শেরপুর, জামালপুর, নেত্রকোণা ও সুনামগঞ্জ জেলা সমুহের প্রতিবেশী ভারতের সাথে দীর্ঘ ৯৪ কিলোমিটার সীমান্ত থাকায় অবৈধভাবে প্রবেশ করছে বিকল্প মাদক।’

এব্যাপারে জানতে চাইলে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কার্যালয় (ডিএনসি) এর সহকারী পরিচালক, আলী হায়দার রাসেল বলেন, বিকল্প মাদকের ব্যাপারে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কার্যালয় (ডিএনসি) নেত্রকোণার কার্যক্রম যথাযত পদক্ষেপ নিয়েছে।

জেলা টাস্কফোর্স কমিটির মাধ্যমে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা ও লকডাউনের মধ্যেও অভিযান অব্যাহত ছিল এখনো আছে।

জেলা প্রশাসক কাজি মোঃ আব্দুর রহমান জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত মাদকের বিরেদ্ধে জিরো টলারেন্স বাস্তবায়নে আমাদের প্রশাসন ও গোয়েন্দা সংস্থা বদ্ধ পরিকর। যেখোনেই মাদক সেখানেই নির্ম‚ল করা হবে। এবং প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।’

মাদকের কড়াল গ্রাস থেকে মাদকমুক্ত শিক্ষাঙ্গন এবং যুব সমাজকে মাদকের ছোবল থেকে রক্ষা করতে বিকল্প মাদক সহ সকল প্রকার মাদক নির্ম‚লে ব্যবসায়ীদের আইনের আওতায় আনার দাবীতে বর্তমান সরকার ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন ভুক্তভোগী সহ সর্বস্তরের জনগণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *