দেশ বাণী ডেস্ক সারা বাংলা

চুয়াডাঙ্গায় উদ্দেশ্যমূলক শ্রমিক বদলির প্রতিবাদ ও বেতন ভাতা বৃদ্ধির দাবিতে শ্রমিকদের আন্দোলন

Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শামসুজ্জোহা পলাশ, চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধিঃ চুয়াডাঙ্গায় উদ্দেশ্যমূলক শ্রমিক বদলির প্রতিবাদ ও বেতন ভাতা বৃদ্ধির
দাবিতে শ্রমিকদের আন্দোলন।। চুয়াডাঙ্গার সি.পি বাংলাদেশ ফিডমিলে উদ্দেশ্যমূলক শ্রমিক বদলির প্রতিবাদ
ও বেতন ভাতা বৃদ্ধির দাবিতে কর্মবিরতি পালন করেছে কর্মরত শ্রমিকরা।’

মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) সকাল থেকে কাজে যোগ না দিয়ে তারা এ আন্দোলন পালন করেন। পরে স্থানীয় প্রশাসনের মধ্যস্থতায় বদলির আদেশ স্থগিতের ঘোষণায় কর্মবিরতি শেষ করে তারা। তবে বদলির আদেশ প্রত্যাহার না হলে ফের আন্দোলনের
হুঁশিয়ারি দিয়েছে শ্রমিকরা।,

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার সুবদিয়া এলাকায় অবস্থিত সি.পি বাংলাদেশের ফিড মিলে স্থানীয় ৩৫-৪০ জন শ্রমিক হিসেবে কাজ করে। মঙ্গলবার সকাল ৬টায় তারা মিলে প্রবেশ করে।’

এ সময় হঠাত শ্রমিক বদলির প্রতিবাদ ও বেতন ভাতা বৃদ্ধির
দাবিতে তাদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দেয়। বদলির আদেশ প্রত্যহার ও বেতন ভাতা বৃদ্ধির দাবিতে আন্দোলন শুরু করে ক্ষুব্ধ শ্রমিকরা।,

চুয়াডাঙ্গায় উদ্দেশ্যমূলক শ্রমিক

খবর পেয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। পুলিশ
সদস্যদের মধ্যস্থতায় বদলির আদেশ স্থগিতের ঘোষনায় আন্দোলন থেকে সরে দাড়ায়
আন্দোলনরত শ্রমিকরা। পরে দুপুর ১২টা থেকে কাজে যোগ দেয় সদস্যরা।

শ্রমিকরা অভিযোগ করে বলেন, প্রতিটি শ্রমিক ৮-১০ হাজার টাকা বেতনে কাজ
করছে। এলাকায় কাজ করার সুবাদে এত অল্প বেতনেও তাদের চলতে হয়। এরমধ্যে
দিনাজপুরের বীরগঞ্জ ফিড মিলে অনেক শ্রমিকের বদলির আদেশ হয়েছে। সেখানে
গিয়ে এত অল্প বেতনে কাজ করা অসম্ভব। তাই বদলির আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে
এ আন্দোলন করা হয়।

সি.পি’র চুয়াডাঙ্গা ফিডমিলের মানব সম্পদ ও প্রশাসন বিভাগের ব্যবস্থাপক
আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, শ্রমিকদের দাবির প্রেক্ষিতে আমাদের
উর্ধ্বতনদের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে। আপাতত সকল বদলির আদেশ স্থগিত করা
হয়েছে। পরে উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে এ সংকট নিরসন করা হবে।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান
জানান, শ্রমিকদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দিলে সকাল থেকে তারা কর্মবিরতি পালন
করে। পরে খবর পেয়ে ঘটনস্থলে পুলিশের বেশ কয়েকটি টিম উপস্থিত হয়। সেখানে
কর্মকর্তা ও শ্রমিকদের সাথে আলোচনার পর পুলিশি মধ্যস্থতায় বিষয়টির সমাধান
করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *