দেশ বাণী ডেস্ক সারা বাংলা

পিরোজপুরসহ সকল সাম্প্রদায়িক হামলার বিচার, শাল্লার ঝুমন দাসের মুক্তি ও উদার-অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার আহ্বান

Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


পিরোজপুরসহ সকল সাম্প্রদায়িক হামলার বিচার, শাল্লার ঝুমন দাসের মুক্তি ও উদার-অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার আহ্বান।
আমরা, শান্তি-সম্প্রীতি ও সহাবস্থানের লক্ষ্যে গঠিত ‘পিস অ্যাম্বাসেডরস নেটওয়ার্ক’, গভীর উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছি যে বাংলাদেশে সংখ্যালঘু, বিশেষত হিন্দু সম্প্রদায় ও মন্দিরের ওপর হামলা একটি নৈমিত্তিক ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। আন্তর্জাতিক বা জাতীয় কোনও ঘটনার রেশ ধরে, যে কোনও রাজনৈতিক অস্থিরতার সুযোগে, এমনকি ব্যক্তিগত দ্বন্দ্বের জেরেও পুরো একটি সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে এমন ধারাবাহিক অপরাধ বাংলাদেশে ঘটে চলেছে। সর্বসম্প্রতি পিরোজপুরের নেছারাবাদ, খুলনার রূপসা, সুনামগঞ্জের শাল্লার হামলাসমূহ সারাদেশে, বছরব্যাপী ধারাবাহিকভাবে ঘটতে থাকা ঘটনারই অংশমাত্র।
অধিকাংশ ক্ষেত্রেই মুষ্টিমেয় স্বার্থান্বেষী ব্যক্তি তার রাজনৈতিক বা সম্পদ দখলের হীনস্বার্থে ধর্মীয় উস্কানী ও সাম্প্রদায়িক উন্মাদনা সৃষ্টির মাধ্যমে এসকল হামলার আয়োজন করে থাকে। বড় ধরণের হামলার আয়োজনে যথেষ্ট পরিমাণে বিনিয়োগ ও প্রস্তুতির সংবাদও বিভিন্ন সময়ে সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ পেয়েছে, যেখানে প্রশাসনসহ রাজনৈতিকমহলের প্রশ্নবিদ্ধ এবং দায়িত্বহীন ভূমিকারও নিদর্শণ মিলেছে।
এসকল ঘটনা একেবারেই যেন প্রতিকারহীন হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। অপরাধীরা প্রায় সকল ক্ষেত্রেই পার পেয়ে যাচ্ছে। ক্ষেত্রবিশেষে নাসিরনগরের রসরাজ বা শাল্লার ঝুমন দাসের মতো নিপীড়িতরাই বরং রাষ্ট্র ও সমাজের হাতে অধিকতর নিগ্রহের শিকার হচ্ছে। এ ধরণের ঘটনা সাম্প্রদায়িক অপরাধীদের প্রতি পরোক্ষ ও প্রত্যক্ষ প্রশ্রয় হিসেবেই প্রতিভাত হচ্ছে, সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনার পুণরাবৃত্তিকে উৎসাহিত করছে, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়সমূহের মধ্যে আস্থার সংকট তৈরি করছে, জাতীয় সংহতি দূর্বল করছে, এবং বহির্বিশ্বে বাংলাদেশ ও মুসলিম সম্প্রদায় সম্পর্কে নেতিবাচক ভাবমূর্তি গড়ে তুলছে।
আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি এটি বাংলাদেশের প্রকৃত চিত্র হতে পারে না। কিন্তু এটিই যে ঘটে চলেছে তা অস্বীকার করার উপায় নেই। যতদিন না সাম্প্রদায়িক উষ্কানী সৃষ্টি করা ও তাতে সাড়া দেয়ার মতো ঘৃণ্য ঘটনাকে আইনী ও সামাজিকভাবে প্রতিরোধ করা হবে, ততদিন এ ধরণের ঘটনা ঘটতেই থাকবে।
আমরা পিস অ্যাম্বাসেডর নেটওয়ার্ক রংপুর বিভাগের আহবায়ক ও দিনাজপুর জেলার খানসামা উপজেলা আওয়ামী লীগ এর সাধারন সম্পাদক সফিউল আযম চৌধুরী লায়ন বিবৃতিতে বলেন, বাংলাদেশের সকল শুভবুদ্ধিসম্পন্ন মানুষ, এবং রাজনৈতিক-সামাজিক-ধর্মীয় নেতৃত্বের প্রতি আহ্বান রাখছি এসব সাম্প্রদায়িক অপশক্তি ও সাম্প্রদায়িক উস্কানীর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে। আমরা আহ্বান জানাচ্ছি শাল্লার ঝুমন দাসের অবিলম্বে মুক্তি এবং পিরোজপুরের সাম্প্রতিক হামলাসহ সকল সাম্প্রদায়িক হামলার বিচার দাবীতে ঐক্যবদ্ধ হতে। আমরা একটি উদার, অসাম্প্রদায়িক ও গণতান্ত্রিক বাংলাদেশে বিশ্বাস করি যে তার সকল নাগরিকের মর্যাদা ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বদ্ধ পরিকর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *