দেশ বাণী ডেস্ক দেশজুড়ে

টাঙ্গুয়ার হাওরে চোরাই কয়লা বোঝাই নৌকাসহ ২জনকে আটকের পর ছেড়ে দিয়েছে আনসাররা

Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া- সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি: টাঙ্গুয়ার হাওরে চোরাই কয়লা বোঝাই নৌকাসহ ২জনকে আটকের
পর ছেড়ে দিয়েছে আনসাররা।। সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর সীমান্তে দিনদিন বেড়েই চলেছে চোরাচালান।’

সরকারের লক্ষলক্ষ টাকা রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে প্রতিদিন ভারত থেকে অবৈধ ভাবে পাচাঁর করা হচ্ছে কয়লা, পাথর ও চালসহ বিভিন্ন প্রকার মাদকদ্রব্য।,


আজ শুক্রবার (৩সেপ্টেম্ভর) সকাল অনুমান ৭টায় জেলার টাঙ্গুয়ার হাওরে অভিযান চালিয়ে চোরাই কয়লা বোঝাই ১টি নৌকাসহ ২জন মাঝিকে আটক করে আনসার সদস্যরা। কিন্তু রহস্যজনক কারণে বেলা ১১টায় সেই নৌকা ও কয়লাসহ ২জনকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।,


এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে- প্রতিদিনের মতো আজ শুক্রবার (৩ সেপ্টেম্ভর) ভোররাত থেকে বালিয়াঘাট ও চারাগাঁও সীমান্তের লাকমা, লালঘাট, বাঁশতলা ও এলসি পয়েন্ট এলাকা দিয়ে সোর্স ইয়াবা কালাম, রমজান মিয়া, শফিকুল ইসলাম ভৈরব,

একদিল মিয়া, কদ্দুস মিয়া, খোকন মিয়া, মানিক মিয়া, হারুন মিয়া, বাবুল মিয়া, আনোয়ার মিয়া, শহিদুল্লাহ, করিম মিয়া, এরশাদ মিয়া, কাসেম মিয়াগং ভারত থেকে পৃথক ভাবে প্রায় ১২০মেঃটন কয়লা ও চালসহ বিপুল পরিমান মাদকদ্রব্য পাচাঁর করে।’

টাঙ্গুয়ার হাওরে চোরাই


পরে সোর্স ইয়াবা কালাম পাচাঁরকৃত ১বস্তা (৫০কেজি) চোরাই কয়লা থেকে বালিয়াঘাট ক্যাম্পের নামে ১শত টাকা, সোর্স রমজান মিয়া ১নৌকা কয়লা (১২মেঃটন) থেকে চারাগাঁও ক্যাম্পের এফএস সামসু ও নায়েক সুবেদারের নামে ৬হাজার টাকা করে চাঁদা নিয়ে ৫টি ইঞ্জিনের নৌকায় প্রায় ৫০মেঃটন কয়লা বোঝাই করে চোরাকারবারী একদিল মিয়া,

মানিক মিয়া ও খোকন মিয়ার মাধ্যমে টাঙ্গুয়ার হাওর দিয়ে নেত্রকোনা জেলার কমলাকান্দা উপজেলার সদরের মনতলা এলাকার কয়লা ব্যবসায়ী আজিজ মিয়া ও সাজু মিয়া ডিপুতে পাঠায়।,


কিন্তু সকাল অনুমান ৭টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে টাঙ্গুয়ার হাওরের দায়িত্বে থাকা রামসিংপুর ক্যাম্পের আনসার সদস্যরা অভিযান চালিয়ে ৫মেঃটন চোরাই কয়লা বোঝাই ১টি ইঞ্জিনের নৌকাসহ ২জন মাঝিকে আটক করে। এঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর বালিয়াঘাট ও চারাগাঁও সীমান্তের চোরাকারবারীরা দৌড়ঝাপ শুরু করে।


এব্যাপারে রামসিংপুর আনসার ক্যাম্প কমান্ডার পিসি জাহাঙ্গীর আলম বলেন- এলাকার লোকজনের অনুরোধের কারণে লিখিত রেখে নৌকাসহ কয়লা ও লোক ছেড়ে দিয়েছি। টাঙ্গুয়ার হাওর অনেক বড়। সব দিকে খেয়াল রাখা সম্ভব হয়না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *